এক চিলতে হওয়ায় উড়ে এলো একটা এরোপ্লেন ,কাগজের এরোপ্লেন একনিমেষে পেছনদিকে ছুটটে গেলাম কুড়িটি বছর ফ্ল্যাশব্যাক আমি আর আমার শৈশব

ঘাসফুল , লজ্জাবতী , বৃষ্টিতে উঠোনে ভাসান নৌকো ,গাছের ডালের চড়ুই , আমার পাওয়া ঘুড়ি ,আমার হারিয়ে যাওয়া বন্ধুরা,হলদেটে হয়ে পড়া ডাকটিকিটের খাতা ,লাটিম আর আমার প্রিয় কৃষ্ণচূড়ার গাছটা কেউ দাড়িয়ে আছে সারি সারি ,কেউ পড়ে আছে আগোছালো , কেউ আড়ালে ,কেউ বা প্রাকাশ্যে ,কিন্ত সবাই উজ্জল , সবাই প্রাণচ্ছলমনে হচ্ছে সবচেয়ে বেমানান যে বস্তুটি ,সেটি হল আমি ।

পৃথিবী তার যে অপার রূপ সৌন্দর্য্য দিয়ে ভরিয়ে রেখেছে এই পৃথিবীকে তার আসল রস গ্রহণ করবার মন এবং উপভোগ করবার নজর রয়েছে এই শৈশবেরই  প্রতিটি শিশুর নিষ্পাপ মনে তাই ধরা পরে লজ্জাবতীর ফুল ,কচুরিপানা , কচি ধান ক্ষেত ,ব্যাঙাচি ,শাপলা ফুল ,সাতরঙ্গা রামধনু ,আরও কত না জানি কত কিছু একমুহুর্তেই আমার বয়স অনেকটা যেন কমে গেল ।

এক অপার্থিব আনন্দ যেন আমাকে সব পেয়েছির দেশে নিয়ে গেল সুখ আর আনন্দের সেই চেতনা আরেকবার উপলব্ধি করলাম , যা ছোট বেলার থেকে শুনে আসছি “ সুখ হল প্রত্যহের অতীত আর  আনন্দ নিত্য দিনের সামগ্রী সুখ পাচ্ছে আঘাত পায় বলিয়া সর্বদাই সঙ্কোচে থাকে , আর আনন্দ ধুলায় গড়াগড়ি খাইয়া আরও আনন্দিত হইয়া ওঠে

এক অদ্ভুত সুন্দর সময় কাটিয়ে যখন বর্তমানে ফিরলাম , তখন আমার হারানো শৈশবকে বলতে ইচ্ছে হল : দেখতে শেখো ,বুঝতে শেখো , ভাবতে শেখো ,অজানাকে জানা , অদেখাকে দেখবার চেষ্টা করো যে সময়টাতে তুমি আছো তার মতো ভালো সময় আর আসবেনা

তাই এর সমস্ত আনন্দ গ্রহণ কর এর একটি মুহূর্তও অব্যবহার বা অপব্যবহার কোরো না উপভোগ কোরো ॥ 

 

~ শৈশব ~

Print Friendly, PDF & Email
0 0 vote
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments