মেক্সিকোর মিচোয়াকান দে ওকাম্পো প্রদেশের ভেনুস্তিয়ান কারানজা মিউনিসিপালটির অন্তর্গত পালমা অঞ্চলে খুব কম লোকের বসবাস। এই অঞ্চলটির উচ্চতা হবে প্রায় ১৫২০ মিটার। এই ছোট্ট জায়গাটিতে প্রত্যেক বছর আগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহে একটি উৎসব পালন করা হয়- Patronal Festival , in honor of the Divine Face.

তবে এই উৎসবটি শুধুমাত্র এখানকার স্থানীয় লোকেদের জন্যই নয়, আশেপাশের অঞ্চল থেকেও  লোকজন আসে এই উৎসবে যোগ দিতে। তারা যখন ওই পালমা হাইওয়ে ধরে গাড়ি করে এই উৎসবে যোগ দিতে আসে তাদের একটি অপ্রীতিকর অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হতে হয়।

ঘটনাটি ঘটেছিল ১৯৮৯ সালে। শোনা যায় এক প্রেমিকযুগল গাড়ি করে ওই হাইওয়ে দিয়ে পালমাতে ফিরছিল। ফেরার পথেই তদের মধ্যে কিছু উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়্। এরপর ছেলেটি মেয়েটিকে ওই হাইওয়ের মাঝখানে নামিয়ে দেয় এবং তাকে সেখানে একা ছেড়ে দিয়ে সে চলে যায়। কিন্তু পাঁচ মিনিট পরেই সে আবার সেখানে ফিরে আসে তাকে আবার গাড়িতে তুলে নেবার জন্য, কিন্তু সে আর মেয়েটির দেখা পায় নি।

ঘটনাটির ঠিক দুদিন পর পুলিশ সেই মেয়েটির মৃতদেহ উদ্ধার করে হাইওয়ের ঠিক সেই জায়গাটি থেকে যেখানে তার প্রেমিক তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে দিয়েছিল।

প্রচণ্ড ক্রোধ থেকে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলেই সন্দেহ করা হয় এবং খুন করার অপরাধে  তাকে গ্রেফতারও করা হয়। কিন্তু ৬ বছর কারাদণ্ডের পর উপযুক্ত প্রমাণের অভাবে সে বেকসুর ছাড়া পেয়ে যায়।

শোনা যায় সেই ঘটনার পর থেকেই সেই হাইওয়ে দিয়ে কোনও যুবক একা গাড়ি চালিয়ে গেলেই সেই মেয়েটির আত্মা ওই হাইওয়ের মাঝখানে এসে পড়ে ঠিক যেখানে তার মৃত্যু হয়েছিল।  সেখানে তার গাড়ির সামনে দিয়ে ওই আত্মা রাস্তা পার হয়, বা কখনও তার গাড়িতে উঠতে চায় এবং তৎক্ষণাৎ অদৃশ্য হয়ে যায়। এর ফলে গাড়ির চালক হতচকিত হয়ে যায় এবং গাড়িটি ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনার কবলে পড়ে।

 

অনুবাদ – কৌশিক দাশ

 

~ পালমা- হাইওয়ের রহস্যজনক গল্প ( মেক্সিকো) ~

Print Friendly, PDF & Email
0 0 vote
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments