তখন রাত ১২ টা
এক অব্যক্ত গোঙানিতে কেঁদে উঠলো মেয়েটি
কে বলে নারী অবলা ?
অস্পষ্ট বাংমইয়তা ভরিয়ে তোলে নিশুতি রাতের নিস্তব্ধতা
শব্দের তরবারি খানখান করে দেয় অমানিশির সেই ভয়াবহতা
কে সে ? এক নারী ! সবলা !
অসহনীয় সেই যন্ত্রণা তবু সে পেতে চায় বারবার !
সব রাত্রিরও অবসান আছে !
অবশেষে ভূমিষ্ঠ হলো এক প্রাণ !
সেই প্রাণ যার বীজ বপন করেছিল তার শরীরে কযেক জন নরপশু !
যৌবন-মদ মত্ত নারী কি কখনো ভেবেছিল
লালসার উন্মত্ত রণ ক্ষেত্রে সে এক সামান্য সৈনিক !
রণ -ক্লান্ত আহত সে চেষ্টা তো করেছিল !
না সে পারেনি সম্ভ্রম বাঁচাতে
নখ-দন্তের তরবারি ব্যর্থ হয়েছিল শিশ্নের বেয়নেটের কাছে
কামনার বিকি-কিনির বাজারে সে এক সুলভ পণ্য
বহু-বার হাত বদল হল তার
এক তাড়া নোট এর মতন !
নারীর সম্ভ্রমে পুরুষের কি যায় আসে ?
নারীর সম্ভ্রম তো তার কাছে এক শব্দ-বন্ধ বৈ কিছু তো নয় !
সে তো চায় অপরিসীম ভোগের তৃপ্তি !

নারী এবারেও ব্যর্থ হলো !
কেড়ে নিয়ে গেল তারা ! সেই প্রাণ !
এটা যে অভিশাপ !
জননীর হাহাকারে সমাজের কি যায় আসে ?
নারী কি কেবলি ব্যর্থতারই এক মূর্ত প্রতীক ?
শান্তির শুভ্র পারাবত তো তার জন্য কেউ উড়ায় না !
তার জন্য বরাদ্দ কি কেবল অভিশাপের কালো করাল আঁধার ?
জন্ম যে মৃত্যুরই নামান্তর !
সে এক বিভীষিকা !

এক ভয়াবহ অভিশাপ !

Print Friendly, PDF & Email
SHARE
Previous articleমিথ্যে
Next articleMonthly Horoscope: August 2014
Soukarja Ghosal
I am a Research Scholar pursuing Ph.D. in English.Writing poetry,articles are my passions!I love to think critically on contemporary social and cultural issues!আমার জন্ম ও বেড়ে ওঠা পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার অন্তর্গত একটি ছোট্ট গ্রামে!রসুলপুর ভুবন মোহন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে স্কুল জীবন,বর্ধমানের বিবেকানন্দ মহাবিদ্যালয় থেকে ইংরাজিতে সাম্মানিক স্নাতক,পন্ডিচেরি কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরাজি সাহিত্যে স্নাতকোত্তর শেষ করে বর্তমানে মার্কিন সাহিত্যের ওপর পি.এইচ ডি করছি পন্ডিচেরি সেন্ট্রাল বিশ্ববিদ্যালয় থেকেIবাংলা সাহিত্যের প্রতি অদম্য আকর্ষণ ছোটবেলা থেকেই . সামাজিক শোষণ বঞ্চনা এসবের বিরুধ্যে লিখতে ভাবতে চিন্তা করতে ভালবাসি ও সাহিত্য চর্চা কেবল আমার কাছে নিছকই অ্যামেচার কিছু নয়.আমি "আর্ট ফর আর্ট'স সেক" তত্ত্বে বিশ্বাসী নই .আমি "আর্ট ফর লাইফ'স সেক" বিশ্বাস করি ও নবারুণ ভট্টাচার্যের মত লেখক আমার আদর্শ যিনি তাঁর "উপন্যাস সমগ্রের " প্রচ্ছদে বলেছেন "” ‘শিল্পের জন্য শিল্প’ এই তত্বে আমি বিশ্বাসী নই.আমি নিপীড়িত ও বঞ্চিত মানুষদের মধ্যে বড় হয়েছি তাই তাদের কথা আমার সাহিত্যে বারবার এসেছে এবং আমার মনে হয় এদের কথা যদি না কলমে তুলে ধরি তাহলে নিজের জীবনটা একটা বেইমানের জীবন হয়ে যাবে…আমি লেখার ব্যাপারটা যেভাবে বুঝি সেটা নিছক আনন্দ দেওয়া বা নেওয়া নয়!আরো গভীর এক আলকেমী যেখানে বিস্ফোরণের ঝুঁকি রয়েছে”!

LEAVE A REPLY

*