আধুনিক জীবনের স্রোত – দ্বিতীয় পর্ব : click here

আগে যা ঘটেছে……

ওঙ্কারের প্রকৃত বাড়ি পুরুলিয়ার গৌরাঙ্গ গ্রামে,উঃ কলকাতায় বাস নেহাতই পড়াশোনার তাগিদে।আবাশিক স্কুলে টানা সাত বছর থাকার পর ঘরে ফেরার অবকাশ পেয়েছে তারা।ওঙ্কার স্টেশনে নানা ভাবে অবাক হলো,প্রথমে জেনারেল কামরা উঠে গেছে তা শুনে , পরে দ্রুতগামী ট্রেন সম্পর্ক….সে আরও অবাক হলো জেনে যে এখন সব ট্রেনেই  free meal দেয় এবং স্যুইচ টিঁপা মোবাইল এখন বাচ্চাদের খেলতে দেওয়া হয়।সে কয়েক ঘন্টার মধ্যেই  পৌঁছলো পুরুলিয়ায়।গ্রামে আসতে আসতে অনেক পার্থক্য লক্ষ করলো।মা তাকে অনেক বকাবকি  করল ধ্যাড়ধ্যাড়া ট্রেনে আসার জন্য।সে খুবই অবাক হলো দেখে যে তার বাবার হাতে-ও দুটি android screen touch mobile আছে।সে শুনতে  পেলো বাইরে ঝুড়িতে করে android mobile বিক্রি হচ্ছে । আবার শোনা গেল  বাইরে থেকে আওয়াজ আসছে “ঘর মোছা”…

মা ওঙ্কার-কে বললেন যে,’তোর ভাইপোর জন্য ডাক্তার দেখাতে যাব , এটকু নাম book করে দিবি ?’
–‘সাইকেলটা নীচে আছে তো,যাই নাম টা লিখে আসি !’
–‘সাইকেল ? ওতো কত বছর আগেই বাঙ্কে উঠে গেছে অসুস্থ অবস্থায় ! আর তাছাড়া এখন গিয়ে বুক করা সিস্টেম অতীতের ইতিহাস,নেটে ওয়েব সাইট খুলে বুক করতে হয় ! বুঝলি বোকা ?’
–‘বুঝলুম !’ অসহায়ভাবে উত্তর দিল ওঙ্কার।
ওঙ্কার সকালে কাগস্নান করে এসছিল বলে আরও একবার ঘরে স্নান করে নিল। স্নান করে মাকে মাথাটা মুছিয়ে দিতে বললে মা প্রত্যুত্তরে বলেন,”ওখানেই বোধ হয় তোর বাবা hair drier  টা নামাল, দেখ্ না ?
–“কি?”
এতসবের মাঝে সে যেন ভুলেই গিয়েছিল আজ সরস্বতী পুজা। কারও মনে কোনও ছাপ নেই যে আজকে সরস্বতী পুজা।
যাই হোক  সে ভক্তিসহকারে পুজো করছে হঠাৎ ভাইপো ‘অনু’ এসে তাকে জিজ্ঞাসা করে,’ What do you do কাকাই ?’
–“পুজো করছি রে”
–“পুজো ? What is পুজো ? ওই চোখ বন্ধ করে ছবিতে আগুন দেওয়া কে পুজো বলে কাকাই ?”
–“না ঠিক তা না ! মানে ! মানে ! ওই……ভক্তি,মানে……”
–“থাক আর বলতে হবে না। আজ আমাদের exam ”                                                                                    maa-saraswati- আধুনিক জীবনের স্রোত

–“exam ? আজ যে বই-খাতা দেবীর চরণে সমর্পন করতে হয় !”
–“ওই ছবিতে ?”
ওঙ্কার বুঝতে পারল, ভাইপো ‘পুজো’ ব্যাপারটাই জানে না।তার কাছে এই ব্যাপারটা সম্পূর্ণ নতুন।
ওঙ্কার মাকে গিয়ে বলল খেতে দিতে,”মা খেতে দাও, সেই সকালে একটু খেয়ে বেরিয়েছে।”
–‘ট্রেনে খাওনি ?  free meal দেয় নি ?’
–‘হ্যাঁ মানে……বোধহয়……’ সে তালগোল পাকিয়ে গেল।’তবে কি তা সত্যি free  ছিল ?’
খেতে বসে,ওঙ্কার মাকে জিজ্ঞেস ক্রল,”মা আচার করনি ?দাও না ! কতদিন তোমার করা আচার খাইনি !”
মায়ের উত্তরে ওঙ্কার খুবই দুঃখ পেল। যেন সে তার কাছের মানুষকেই চিনতে ভুল করছে।
–“ওখানে নামান আছে, Haldiram mango pickle.”
–“ওটা তো তোমার করা নয় !”
–“কিনতে যাব কেন ? Snapdeal-এ ফ্রি অফার চলছিল যে।”

 

… to be continued

~ আধুনিক জীবনের স্রোত – তৃতীয় পর্ব ~

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

*